আলোচিত আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় গ্রেপ্তার মিতুকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট

বার্তা‌জগৎ২৪ ডেস্কঃ

প্রকাশিতঃ ২৯ অগাস্ট ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ২ঃ২৯
আলোচিত আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় গ্রেপ্তার মিতুকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট
আলোচিত আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় গ্রেপ্তার মিতুকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ব্যাপক আলোচিত ঘটনা চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের আত্মহত্যা। সে আত্মহত্যায় প্ররোচণা মামলায় গ্রেফতার হয়েছিলেন তার স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতু। প্রায় ৬ মাস পর অবশেষে হাইকোর্টে থেকে জামিন পেলেন তিনি।

গতকাল বুধবার দুপুরে বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চ ডাক্তার মিতুর জামিন মঞ্জুর করেছেন বলে জানা গেছে।

শুরুতে আদালতে মিতুর জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন।

এই মামলার শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল গিয়াস উদ্দিন আহমেদ ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মির্জা মো. সোয়েব মুহিত।

চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি বন্দরনগরী চট্টগ্রামের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার একটি বাসায় ডাক্তার মোস্তফা মোরশেদ আকাশ ইনজেকশনের মাধ্যমে শিরায় বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে আত্মহত্যা করেন।

আলোচিত এই আত্মহত্যার ঘটনার আগে,একাধিক পুরুষের সঙ্গে মিতুর পরকীয়ার সম্পর্ক থাকাকে কেন্দ্র করে ডাক্তার আকাশ ও তার স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ভোর ৪টার দিকে বাসা থেকে বের হয়ে বাবার বাড়ি চলে যান মিতু।

পরে স্ত্রীর সমালোচনা করে বুক ভরা কষ্ট ও অভিমান নিয়ে মিতুর স্বামী মোস্তফা মোরশেদ আকাশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে তিনি লেখেন,

ভালো থেকো আমার ভালোবাসা,তোমার প্রেমিকদের নিয়ে’ ঘটনার সমস্ত বিবরণ উল্লেখ করে ডাক্তার আকাশ আরো লিখেন ‘আমাদের দেশের ভালোবাসায় চিটিংয়ের শাস্তি নেই, তাই আমিই বিচার করলাম আর আমি চিরশান্তির পথ বেছে নিলাম। ’

আকাশের আত্মহত্যার পরে মা জোবেদা খানম আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে আকাশের স্ত্রী মিতু, শ্যালিকা, দুই বন্ধুসহ ৬ জনকে আসামি করে ১ ফেব্রুয়ারি চান্দগাঁও থানায় মামলা করেন। ঘটনার সত্যতার প্রমান পেয়ে এক পর্যায়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম নগরীর নন্দনকানন এলাকায় এক আত্মীয়ের বাসা থেকে তানজিলা হক চৌধুরী মিতুকে গ্রেফতার করে।

বিয়ের আরো আগে ২০০৯ সাল থেকে আকাশের সঙ্গে মিতুর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এরপর ২০১৬ সালে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ডাক্তার আকাশের মৃত্যুর পর থেকে চিকিৎসক দম্পতির এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে পক্ষে-বিপক্ষে নানা রকমের আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

সূত্র:  ডিবিসিনিউজ

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি