কি ঘটেছিল ‘ম্যাক্সিকান অক্টোবরে’?

বার্তা জগৎ২৪ ডেস্ক

প্রকাশিতঃ ২০ অক্টোবর ২০১৮ সময়ঃ রাত ১ঃ৫০
কি ঘটেছিল ‘ম্যাক্সিকান অক্টোবরে’?
কি ঘটেছিল ‘ম্যাক্সিকান অক্টোবরে’?

 

১৯৬৮সালে ২ অক্টোবরে ম্যাক্সিকোতে ঘটে যাওয়া ম্যাসাকার ‘তাতেলোলকো ম্যাসাকার’ নামে পরিচিত। তাতেলোলকো ম্যাসাকারে ম্যাক্সিকো সিটির তাতেলোলকো বিভাগে ‘থ্রি কালচারাল স্কয়ার’-এ সমবেত ছাত্র-জনতাকে পুলিশ ও সেনাবাহিনী গুলি করে হত্যা করে। ঘটনাটি ‘ম্যাক্সিকান ডার্টি ওয়ার’-এর অংশ হিসাবে পরিচিত। যার মধ্য দিয়ে সরকার বাহিনীগুলো ব্যবহার করে রাজনৈতিক বিরোধীদের দমন করে। ১৯৬৮ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক অনুষ্ঠিত হওয়ার দশ দিন আগে খুবই নগ্নভাবে ঘটনাটি ঘটানো হয়।

 

ফেডারেল ডিরেক্টর অব সিকিউরিটি-র প্রধান প্রতিবেদনে বলেছিলেন, ১৩৪৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ঐ সময়ে সরকার ও মেক্সিকান মিডিয়াগুলো বলতে ছিল যে প্রতিবাদকারীরা সরকারি বাহিনীকে উস্কে দিয়েছে তাদের গুলি করার জন্য। কিন্তু ২০০০ সালে সরকারি নথিপত্র জনসম্মুখে প্রকাশিত হলে জানা যায় যে, সরকার স্নাইপার নিয়োগ করেছিল। ল্যাটিন আমেরিকা নীতি বিষয়ক মার্কিন সিনিয়র নিরাপত্তা বিশ্লেষক কেট ডোলে ৪৪ জনের মৃত্যুর কথা বলেছিলেন। যাই হোক প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে নিহতের সংখ্যা ছিল ৩০০-৪০০ এর মধ্যে।

 

 

১৯৬৮ সালের ২ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় ও উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০০০০ শিক্ষার্থী ‘থ্রি কালচারাল স্কয়ারে সমবেত হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করতে ছিল এবং বক্তৃতা শুনতে ছিল। পার্শ্ববর্তী আবাসিক এলাকা থেকে অনেক নারী-পুরুষ সমাবেশে যোগদান করেছিল। সেখানে পথচারীরাও যোগদান করে, ছিল শিশুও। তারা স্লোগান দিতে ছিল, ‘আমরা অলিম্পিক চাই না, আমরা বিপ্লব চাই’।

 

তৎকালীন ম্যাক্সিকান সরকার মার্কিন মদদপুষ্ট ছিল। ৬০ এর দশকে পুরোটা সময় ধরে যে কোন বিরোধী আন্দোলন দমনের জন্য সরকার স্নদোলনের মধ্যে সোভিয়েত ইউনিয়নের মদদপুষ্ট কমিউনিস্ট আন্দোলনের ভূত দেখতো। এটা ‘ম্যাক্সিকান ডার্টি ওয়ার’ নামে পরিচিত। এক্ষেত্রেও তার ব্যত্যয় ঘটে নি। কিন্তু ২০০০ সালে মার্কিন ও ম্যাক্সিকান সরকারের নথিগুলো জনসম্মুখে প্রকাশ পেলে উঠে আসে আসল সত্য। যা আগ্রহীদের কাছে নতুনভাবে ধরা দেয় এবং তা নতুন উপসংহারে দাঁড়ায়।

 

বার্তাজগৎ২৪/এমএ