কোরআনিক ভয়েস প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছে মাশরাফি কন্যা

দিদার,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিতঃ ২৯ এপ্রিল ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ১২ঃ২৫
কোরআনিক ভয়েস প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছে মাশরাফি কন্যা
কোরআনিক ভয়েস প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছে মাশরাফি কন্যা

 

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধি:

বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষের পাশাপাশি সারা বিশ্বের ক্রিকেট প্রেমীদের কাছে একটি জনপ্রিয় নাম মাশরাফি বিন মর্তুজা। যিনি জাতীয় দলের হয়ে খেলার পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে নেতৃত্ব দিয়ে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।আজকের এই বাংলাদেশ দলের উন্নতির পেছনে সবচেয়ে বড় যার ভূমিকা রয়েছে তিনি হচ্ছেন সকলের প্রিয় মাশরাফি বিন মর্তুজা। শুধুমাত্র জনগণের কাছে নয় বরং বিসিবির সকল কর্মকর্তা থেকে শুরু করে জাতীয় দলের বর্তমান ও সাবেক সকল ক্রিকেটারদের একমাত্র যিনি মন জয় করে সকলের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন তিনি হলেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।একজন সফল পেসারের পাশাপাশি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের একজন সফল অধিনায়ক হিসেবে। মাঠ ও মাঠের বাইরে বরাবরই তিনি সবার চেয়ে ব্যতিক্রম দেশ প্রেমিক এবং সাহসী যোদ্ধা। রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হয়ে নিজের নির্বাচনী এলাকায়ও নিরলসভাবে সর্বস্তরের মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে একের পর এক কাজ করে যাচ্ছেন।

মাশরাফি বিন মর্তুজা ২০০৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর নড়াইলের মেয়ে সুমনা হক সুমিকে বিয়ে করেন।বিয়ের পাঁচ বছর পর প্রথমবারের মতো কন্যা সন্তানের বাবা হন তিনি। ২০১১ সালের ১৮ মার্চ মাশরাফি ও সুমনা দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় মেয়ে হুমায়রা মর্তুজা।

সেই ছোট্ট হুমায়রা মুর্তজা বাবা-মায়ের প্রচেষ্টায় নিজের দক্ষতার ছাপ রেখেছেন পবিত্র কুরআন শিক্ষায়।

খুবই অল্প বয়স থেকে পবিত্র কোরআন মাজীদ শিক্ষা গ্রহণের কারণে ইতোমধ্যেই ‘কুরআনিক ভয়েস’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া গৌরব অর্জন করেছেন মাশরাফি-সুমনা দম্পতির আদরের ছোট্ট কন্যা হুমায়রা। ‘কুরআনিক ভয়েস’ প্রতিযোগিতায় মেয়ের অংশ নেওয়ার খবরটি ফেসবুকে শেয়ার করে নিশ্চিত করেছেন মাশরাফির স্ত্রী সুমনা হক সুমি।

 প্রতিবারের মতো এবারও জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ।আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে কুরআন পাঠ করতে দেখা গেছে মাশরাফি-কন্যাকে। কুরআন পাঠ শেষে মাশরাফি-কন্যার ভূয়সী প্রশংসা করেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক সহ উপস্থিত কোরআনে হাফেজ এবং আলেমরা।