চট্টগ্রামে চলছে মাসব্যাপী ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ও বাণিজ্য মেলা ২০১৯

দিদার,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিতঃ ২ মে ২০১৯ সময়ঃ রাত ১০ঃ১১
চট্টগ্রামে চলছে মাসব্যাপী ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ও বাণিজ্য মেলা ২০১৯
চট্টগ্রামে চলছে মাসব্যাপী ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ও বাণিজ্য মেলা ২০১৯

 

দিদার,বিশেষ প্রতিনিধি

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের হালিশহরের আবাহনী মাঠে চলছে মাসব্যাপী  'চট্টগ্রাম ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ও বাণিজ্য মেলা’। গত মাসের ১২ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই মেলার আয়োজন করেছেন জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি বাংলাদেশ (নাসিব)।

সারা দেশব্যাপী দেশের ঐতিহ্য রক্ষার অংশহিসেবে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের প্রসারের লক্ষ্যে নাসিব চট্টগ্রাম মহানগরে এই মেলার আয়োজন করেছে বলে জানা গেছে। চট্টগ্রামবাসীর কাছে ভিন্নধর্মী এই মেলা ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার মেলার সকল স্টলগুলোতে ছিল উপচেপড়া ভিড়। দূরদূরান্ত থেকে লোকজন খবর পেয়ে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প পরিদর্শনের পাশাপাশি আসবাবপত্র ক্রয়ের জন্য  মেলায় ভিড় জমাচ্ছে।

মেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ১৮০টি স্টল,ফরেইন জোনে ইরানী ও থাই প্যাভিলিয়নসহ রয়েছে ফুড জোন।মেলায় হস্তশিল্প, কুটির শিল্প, তাঁত ও শিল্প সামগ্রী এবং নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয়ের জন্য উপস্থাপন করা হয়েছে।

মেলায় প্রবেশের সাথে সাথে গেটের সামনে চোখে পড়বে মনমুগ্ধকর কৃত্রিম ঝর্ণা,রয়েছে শিশু কিশোর বিনোদন পার্ক, যেখানে শিশু কিশোরদের বিনোদনের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে ওয়াটার রাইড,নাগর দোলা সহ বিভিন্ন প্রকারের উপভোগ্য রাইড।মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে রাত ১০ পর্যন্ত চলে। 

 

  

‘নাসিব' সারা দেশে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছে। বর্তমানে বাংলাদেশে নাসিবের প্রায় ১৫ হাজার সদস্য রয়েছে।ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বাজার সম্প্রসারণ,অর্থায়ন,এক্সেস টু ইনফরমেশনসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত থাকার কারনে এই শিল্পের উদ্যোক্তাদের অনেক সমস্যা রয়েছে।এ সব সমস্যা সমাধানে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছে মেলার আয়োজক কর্তৃপক্ষ।নাসিব বিসিক ও এসএসই ফাউন্ডেশনকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত মেলার আয়োজন করে থাকে।

মেলার আয়োজক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বললে তারা জানায়,চট্টগ্রাম ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ও বাণিজ্য মেলা থেকে আমরা নানা নির্দেশনা পাবো।এই নির্দেশনা আগামী দিনে চট্টগ্রামকে নিয়ে ভাবনার সুযোগ করে দেবে। অপরদিকে মেলায় আসা দর্শনার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে,মেলার আয়োজনে তারা খুবই সন্তুষ্ট। তাদের দাবি চট্টগ্রামে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে,তাই প্রতিবছর এ ধরনের মেলার আয়োজন করলে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী এই শিল্প সকলের মাঝে বেঁচে থাকবে।

ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে বাংলার আবহমান সংস্কৃতির প্রতিভাস ফুটে ওঠে, যার নির্মাতা পল্লী অঞ্চলের মানুষ। নিজেদের জীবিকা এবং নিজসত ব্যবহারের জন্য তারা এ সকল পণ্য উৎপাদন করে। বাংলার প্রকৃতি, মানুষ, পশুপাখি, লতাপাতা, গাছপালা, নদ-নদী ও আকাশ কুটির শিল্পের ডিজাইনে বা মোটিভে দেখা যায়। কুটির শিল্পকে অনেকে হস্তশিল্প, কারুশিল্প, সৌখিন শিল্পকর্ম, গ্রামীণ শিল্পও বলেন।বর্তমানে মেলার আয়োজনের মাধ্যমে গ্রাম এলাকার পাশাপাশি শহর এলাকায়ও কুটির শিল্পের প্রসার ঘটছে।