চাকরির বয়স ৩৫ নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

বার্তা জগৎ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ৮ জুলাই ২০১৯ সময়ঃ বিকেল ৫ঃ৫৮
চাকরির বয়স ৩৫ নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী
চাকরির বয়স ৩৫ নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

 

বার্তা জগৎ২৪ ডেস্কঃ 

বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের বিগত কয়েকটি বিসিএসে চাকরিপ্রার্থীদের বয়স অনুযায়ী পাসের ফলাফল তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এতে ২৩ থেকে ২৫ বয়সের মধ্যে তরুণ-তরুণীদের পাসের হার বেশি এবং ২৯ ঊর্ধ্বদের পাসের হার খুবই কম। এখন আপনার বলেন বয়স ৩৫ বছরে উন্নীত করা উচিত হবে কি হবে না? তাছাড়া বয়স ৩৫ করলে ট্রেনিং শেষ করে চাকরিতে প্রবেশ করতে ৩৭ বছর লেগে যাবে। আবার ২৫ বছর চাকরি না করলে পূর্ণ পেনশন পাওয়া যায় না-এই বিষয়টাও মাথায় রাখতে হবে।

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছরে উন্নীত করার দাবিতে আন্দোলনকারী চাকরিপ্রত্যাশীদের বিষয়টি তুলে সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, এখন জন্ম নিবন্ধন হয়। নিয়মিত পড়াশোনা করলে ১৬ বছরে এসএসসি পাশ করে। এরপর দুই বছরে এইচ এস সি। এরপর চার বছরে অনার্স ও এক বছরে মাস্টার্স করলে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে সরকারি চাকরির পরীক্ষা দিতে পারে। 

তিনটি বিসিএসের প্রসঙ্গ টেনে প্রধান মন্ত্রী বলেন, ৩৫ তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে পাশের হার ৪০.৭ ভাগ, ২৫-২৭ বছরের মধ্যে পাশের হার ৩০.২৯, ২৭-২৯ বয়সে ১৩.১৭ শতাংশ প্রার্থী পাশ করেছেন এছাড়া ২৯ বছরের বেশি বয়স যেসব প্রার্থীর ৩.৪৫ ভাগ পাশ করেছেন।

৩৬ তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে পাশের হার ৩৭.৪৫ ভাগ, ২৫-২৭ বছরের মধ্যে পাশের হার ৩৪.৭৮, ২৭-২৯ বয়সে ১৯.৮৯ শতাংশ প্রার্থী পাশ করেছেন এছাড়া ২৯ বছরের বেশি বয়স যেসব প্রার্থীর ৩.২৩ ভাগ পাশ করেছেন।

এছাড়া ৩৭ তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে পাশের হার ৪৩.৬৫ ভাগ, ২৫-২৭ বছরের মধ্যে পাশের হার ২৩.৩৫, ২৭-২৯ বয়সে ৭.২০ শতাংশ প্রার্থী পাশ করেছেন এছাড়া ২৯ বছরের বেশি বয়স যেসব প্রার্থীর ০.৬১ ভাগ পাশ করেছেন।

এখন আপনারাই বলেন চাকরির বয়স বাড়ালে কি হবে?

সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেট নিয়েও কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ছেলেরা অত্যন্ত ভালো খেলেছে। 

এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ছেলেরা তো ভালোই খেলেছে। তারপরও তাদের নিয়ে সমালোচনা কেন। 

সমালোচনা করতে হলে অন্যদের নিয়েও করেন। অন্য অনেক ভালো ভালো দলও তো খারাপ করেছে। 

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার ছেলেদেরকে কেউ খারাপ বলতে পারবেন না। 

সংবাদ সম্মেলনে মিয়ানমারের রাখাইন অঞ্চলকে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত করার প্রস্তাব নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ১৩ জুন  রাখাইনকে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত করার প্রস্তাব ওঠে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে।  

কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের এশিয়া প্রশান্ত-মহাসাগরীয় উপকমিটির চেয়ারম্যান ব্রাড শেরম্যান মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যকে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত করার বিষয়টি বিবেচনার জন্য পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতি আহ্বান জানান।

এ নিয়ে সোমবার সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ধরণের প্রস্তাব গর্হিত কাজ। এটা কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। 

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের আয়োতন নিয়ে সন্তুষ্ট। তাছাড়া মিয়ানমার আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র। হ্যা, সেখানে রোহিঙ্গাদের নিয়ে একটা সমস্যা হয়েছে। সেটা সমাধানে তারা যথাযথ ব্যবস্থা নিবে এটাই আমরা চাই। 

বার্তা জগৎ২৪/ এম এ

 

Share on: