ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শাড়ি নিয়ে ঢাবি হলে দুই পক্ষের হাতাহাতি

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ৬ জানুয়ারী ২০২০ সময়ঃ রাত ৩ঃ১৩
ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শাড়ি নিয়ে ঢাবি হলে দুই পক্ষের হাতাহাতি
ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শাড়ি নিয়ে ঢাবি হলে দুই পক্ষের হাতাহাতি

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শাড়ি বিতরণ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের দুই পক্ষের হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এতে হলের তিন ছাত্রী আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন হল সংসদের সমাজসেবা সম্পাদক ইসরাত জাহান ইতি, বহির্ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক পাপিয়া আক্তার ও মিলি রাণী। এদের মধ্যে পাপিয়া ও ইতি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

রোববার (৫ জানুয়ারি) রাত ৮টার দিকে হলের ভেতরে এই ঘটনা ঘটে। এরপর প্রায় ঘণ্টাখানেক স্লোগান-পাল্টা স্লোগান ও মারধরের ঘটনা চলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মীদের মধ্যে শাড়ি বিতরণ করেন হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রওনক জাহান রাইয়ান। সে সময় ছয়জন শাড়ি না পেয়ে রুমে চলে যান। হল ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সালসাবিল খান তাদের ডেকে ছয়টি শাড়ি দেন। এতে ক্ষুব্ধ হন রাইয়ান। তাদের দুপক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

রোববার রাত ৮টার দিকে সালসাবিল রুমে গিয়ে দেখেন তার সব জিনিসপত্র বাইরে পড়ে আছে। এ নিয়ে রাইয়ানের কর্মীদের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। তবে রাইয়ান পক্ষে কর্মীরা দাবি করেছেন, সালসাবিল আগে হামলা করেছে।

সূত্র জানায়, রওনক জাহান রাইয়ান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারী। অন্যদিকে সালসাবিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের অনুসারী।

রওনক জাহান রাইয়ান বলেন, আমাদের দুজন হাসপাতালে ভর্তি আছে। আমরা হল প্রভোস্ট ও হাউজ টিউটরদের সঙ্গে বসেছিলাম। তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য সালসাবিল খানের মোবাইলে কল করে তাকে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে হল প্রভোস্ট অধ্যাপক জাকিয়া পারভীন বলেন, তেমন কিছু ঘটেনি। এটা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। হলের ছাত্রীরা নিজেরা নিজেরা কথা কাটাকাটি করেছে।

বার্তাজগৎ২৪/ এম এ 

 

Share on: