জহিরুল হক, বলছি এক দেবদূতের কথা...

বার্তা‌জগৎ২৪ ডেস্কঃ

প্রকাশিতঃ ৩০ অগাস্ট ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ১২ঃ৩১
জহিরুল হক, বলছি এক দেবদূতের কথা...
জহিরুল হক, বলছি এক দেবদূতের কথা...

বার্তা‌জগৎ২৪ ডেস্কঃ

জহিরুল হক একজন পুলিশ। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের পুলিশ ফাঁড়িতে ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত আছেন।  

তবে পুলিশি দায়িত্বের বাইরে তিনি অন্যরকম কিছু দায়িত্ব পালন করেন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে যেসব রোগীরা আসেন তাদের অনেককে তিনি সাহায্য করে থাকেন। যার যেরকম সাহায্য দরকার তাকে সেরকম সাহায্য করেন।

চিকিৎসক কিংবা হাসপাতালের কোন কর্মী না হয়েও তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একজন পরিচিত মুখ। এই হাসপাতালে কেউ তাকে দেখে ভয় পায় না বরং খানিকটা আশার আলো খুঁজে পায়। তার কোন জরুরী দরকার নেই তবু জরুরী বিভাগে তাকে পাওয়া যায়। রাস্তায়, কোথাও কেউ এক্সিডেন্ট করলে, কিংবা রক্তের দরকার পড়লে তিনি হাজির হয়ে যান। সর্বাত্মক চেষ্টা করেন রক্ত খুঁজে বের করার। পুলিশি দায়িত্বের বাইরে যতটুকু সময় পান তিনি হাসপাতালে ছুটে যান। 

এক্সিডেন্ট করে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়তে থাকা রোগীর কোন আত্মীয় স্বজনের খোঁজ পাওয়া না গেলেও তিনি হাজির হয়ে যান হাসপাতালে। চিকিৎসা কিভাবে চলবে, কিভাবে সব সামলাতে হবে? ঠিক সেই মুহুর্তে দেবদূতের মতো তিনি পরম আত্মীয়ের ভূমিকা পালন করেন। একদিকে চলে স্বজনের খোঁজ বের করা, অন্যদিকে নিজেই দায়িত্ব নিয়ে রোগীর চিকিৎসা চালিয়ে যেতে থাকেন। পরবর্তীতে রোগীর আত্মীয় খোঁজ খবর পাওয়া গেলে রোগীকে হস্তান্তর করেন তার আত্মীয়ের কাছে। 

রোগী যখন তার আত্মীয়কে ফিরে পান তখন জহিরুল খুঁজে পান পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সুখ। পুলিশি সেবা নিয়ে আমাদের বিস্তর অভিযোগ থাকলেও এই জহিরুল হক ব্যাতিক্রম। পুলিশের ব্যাপারে আমাদের মনোভাব বেশিরভাগই ইতিবাচক নয়। এর পেছনে যথেষ্ট কারণ আছে। 

তবে এ সমস্ত নেতিবাচকতার বাইরে এই জহিরুল হক একজন আলাদা মানুষ। তিনি আশা করেন এই জহুরুল হক থেকেই অগণিত জহিরুলের উত্থান হবে। পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে মানবতা। যদি এই ভালো কাজের খবর গুলো ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে প্রশংসা করার মাধ্যমে উৎসাহ প্রদান করা যায় তবে আমাদের আশা, আরো অনেক জহিরুল হকের উত্থান হবে।  তবেই তো এ দেশ হবে মানবতার বাংলাদেশ।

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি