টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হতে গেলে আর কী করতে হবে!

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিতঃ ১৭ জুলাই ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ১২ঃ৪৪
টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হতে গেলে আর কী করতে হবে!
টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হতে গেলে আর কী করতে হবে!

 

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধি:  

এশিয়ার যে কোন দেশের জন্য সদ্য সমাপ্ত হাওয়া ক্রিকেট বিশ্বকাপ ছিল একটি দুঃস্বপ্নেরই স্মৃতি! এশিয়ার অন্যতম পরাশক্তির দল ভারত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে গেলেও শেষমেষ ভরাডুবি হয়েছে। একে একে বিদায় নিতে হয়েছে এশিয়ার প্রতিটি রাষ্ট্রকে।

বাংলাদেশ প্রথম রাউন্ডে বাদ পড়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেও ইংল্যান্ডের মাটিতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেন বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। প্রথম রাউন্ডে যখন খেলছে তখন তাঁর ব্যাটে স্বপ্ন দেখেছে বাংলাদেশ। শুধুমাত্র ব্যাটিংয়ে নয় বরং বোলিংয়েও সাকিব আল হাসান ছিল বরাবরই উজ্জ্বল। অলরাউন্ডার পারফরমেন্স বিচার করলে এবারের বিশ্বকাপে অন্য কোন ক্রিকেটাররা সাকিব আল হাসান এর ধারে কাছেও ছিল না কিন্তু তার পরেও টুর্নামেন্টের শেষে সেরার শিরোপা পাননি তিনি। 

নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হিসেবে বেছে নিয়েছে আইসিসি। আর তার পরেই প্রশ্ন উঠেছে,সাকিব নন কেন? কেন তাঁকে উপেক্ষা করা হল? অথচ বিশ্বকাপের বল গড়ানোর পর থেকেই দারুণ ছন্দে ছিলেন সাকিব। সাকিবের এবারের পারফরম্যান্স দেখে শুধুমাত্র বাংলাদেশি ক্রিকেট ভক্তরা নয় বরং সারা বিশ্বের যারা ক্রিকেটের কিংবদন্তি হিসেবে পরিচিত তারাও মুগ্ধ হয়েছিলেন।

এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে ৮৪ বলে ৭৫ রানের অনন্য ইনিংস খেলেন সাকিব। রান তাড়া করার ক্ষেত্রেও বাংলাদেশকে নতুন দিশা দেখান শাকিব। জেসন হোল্ডার,ক্রিস গেলের ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩২২ রান তাড়া করতে নেমে শাকিবের ব্যাটে ভর করেই অসাধ্য সাধন করে ‘টাইগার’রা। ১২৪ রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে৭ উইকেটে জয় এনে দেন সাকিব। টুর্নামেন্টে অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশ হার মানলেও ধারাবাহিকভাবে রান করে গিয়েছেন সাকিব। শুধু ব্যাটে নয় বল হাতেও একাই বিপক্ষের ঘুম ছুটিয়ে দেন সাকিব। ব্যাট হাতে  আট ইনিংসে মোট ৬০৬ রানের পাশাপাশি ১১ টি উইকেট শিকার করে অনবদ্য নজির গড়েন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। তাঁর এই অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের জন্য ইয়ান বথাম, কপিল দেব, গ্যারফিল্ড সোবার্সের মতো ক্রিকেট কিংবদন্তিদের কক্ষপথে ঢুকে পড়েন এই বঙ্গ ক্রিকেটারও।

তবুও শাকিব কেন পেলেন না ‘প্লেয়ার অফ দ্য টুর্নামেন্ট’-এর সম্মান? এখানেই ক্ষোভ বাড়ছে বাংলাদেশি ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের একাংশ জানাচ্ছেন, অঙ্কের হিসেবে নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের দলের প্রতি অবদান ২৮.৫৭ শতাংশ। অপরদিকে শাকিবের অবদান ২৮.২৫ শতাংশ। এখানেই পিছিয়ে পড়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

অপরদিকে বিশ্বকাপে অলরাউন্ডার পারফরম্যান্সের নিরিখে বিচার করলে উইলিয়ামসনের থেকে অনেকটাই এগিয়ে সাকিব। নয় ইনিংসে কিউই অধিনায়কের মোট রান ৫৭৮। সেখানে ২টি শতরান-সহ সাকিবের সংগ্রহ ৬০৬! সেই সাথে বল হাতে ১১টি উইকেট নেওয়ার পরেও সেরা ক্রিকেটারের শিরোপা না পাওয়ায় প্রশ্ন জাগছে অনেকের মনে। সারা বিশ্বের কোটি কোটি বাঙ্গালীদের মনে একটাই প্রশ্ন টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হতে গেলে আর কী করতে হবে?

বার্তা জগৎ২৪/ এম এ