বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পরে আর কখনো জন্মদিন পালন করেননি নায়ক ফারুক

বার্তা‌জগৎ২৪ ডেস্কঃ

প্রকাশিতঃ ১৭ অগাস্ট ২০১৯ সময়ঃ বিকেল ৫ঃ৩৩
বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পরে আর কখনো জন্মদিন পালন করেননি নায়ক ফারুক
বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পরে আর কখনো জন্মদিন পালন করেননি নায়ক ফারুক

 

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধি:

বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী যুগের জনপ্রিয় নায়ক ও দেশ বরেণ্য অভিনেতা চলচ্চিত্রের মিয়া ভাই খ্যাত নায়ক ফারুকের জন্মদিন আজ। তবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর পরে গত ৪৩ টি বছর ধরে তিনি কখনো জন্মদিন পালন করেননি। এই দিনটিতে কোনো উৎসব নয় বরং কালো ব্যাজ পরে ঘুরে বেড়ান তিনি।

চলতি বছরের ২০ জুলাই লন্ডনে গিয়েছেন আকবর হোসেন পাঠান ওরফে নায়ক ফারুক। আজকের এই জন্মদিনেও তিনি সেখানেই অবস্থান করছেন। একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান,আগামী ২২ আগস্ট দেশে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে।

নিজের জন্মদিন নিয়ে নায়ক ফারুক বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে আমি সবার কাছে দোয়া চাই। আগস্ট শোকের মাস। তাই কোনো জন্মদিনই ঘটা করে পালন করা হয় না। ৪৩ বছর ধরে আমি জন্মদিনে কেক কাটি না। কালো ব্যাজ পরে ঘুরে বেড়াই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, যেন সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পারি। মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করতে পারি।’

আকবর হোসেন পাঠান যার ডাক নাম দুলু তিনি চলচ্চিত্রে নায়ক ফারুক হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। দেশবরেণ্য এই অভিনয়শিল্পী ১৯৪৮ সালের ১৮ আগস্ট জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি একাধারে চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক ও ব্যবসায়ী। তিনি স্কুল জীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। ১৯৬৬ সালে তিনি ছয় দফা আন্দোলনে যোগ দেন এবং এ সময়ে তার নামে প্রায় ৩৭টি মামলা দায়ের করা হয়। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেন।

১৯৭১ সালে এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। তিনি ‘লাঠিয়াল’, ‘সুজন সখী’, ‘নয়ন মণি’, ‘সারেং বৌ’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘সাহেব’, ‘আলোর মিছিল’, ‘দিন যায় কথা থাকে’, ‘মিয়া ভাই’সহ শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। যে সকল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তার মধ্যে 'মিয়া ভাই' চলচ্চিত্রের 'মিয়া ভাই' নামটি নিজের পরিচয় বহন করে সবার কাছে ছড়িয়ে পড়েছে।

কর্মজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে সর্বপ্রথম লাঠিয়াল চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি ১৯৭৫ সালে শ্রেষ্ঠ পার্শ্বঅভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৬ তে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ চিত্রনায়ক ফারুক লাভ করেন আজীবন সম্মাননা পুরস্কার।

মাঝখানে অনেকদিন ধরে রাজনীতিতে বড় কোনো দায়িত্ব পালন না করলেও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন সংগ্রহ করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি রাজধানীর গুলশান, বনানী, ক্যান্টনমেন্ট ও ভাসানটেকের কিছু অংশ নিয়ে ঢাকা-১৭ আসনের সাংসদ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

বার্তাজগৎ২৪/ এম এ/এফ এইচ পি