বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের প্রতীকী কুশপুত্তলিকা দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে বিক্ষোভ

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সময়ঃ সকাল ১১ঃ৫২
বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের প্রতীকী কুশপুত্তলিকা দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে বিক্ষোভ
বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের প্রতীকী কুশপুত্তলিকা দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে বিক্ষোভ

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি)'র কর্মরত সাংবাদিক দ্যা ডেইলি সান ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি, সাংবাদিক শামস জেবিন এর উপর হামলাকারীদের বিচার দাবি এবং বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় (জাককানইবি) প্রেসক্লাব।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ ঘটিকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ 

সমাবেশ করেছে সাংবাদিক সংগঠনটি।

(জাককানইবি) প্রেসক্লাব এর সাধারণ সম্পাদক নিহার সরকার অংকুর এর সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাককানইবি প্রেসক্লাবের সভাপতি সরকার আব্দুল্লাহ তুহিন। এ সময় বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ফাইজা ওমর তূর্ণা।

বক্তারা অনতিবিলম্বে ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান। সেই সাথে জিনিয়াকে নির্দোষ ঘোষণা সহ বশেমুরবিপ্রবির সাংবাদিক শামস জেবিন এর উপর হামলাকারীদের বিচার দাবি করেন বক্তারা।

এসময় সাংবাদিকরা বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে প্রতীকী কুশপুত্তলিকা দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করেন।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবি জানিয়ে সাংবাদিকরা আরো বলেন, 'ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকদের উপর কোনপ্রকার হয়রানি, হামলা বরদাস্ত করা হবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন সাংবাদিকের উপর আক্রমন হলে আমরা কেউ বসে রইব না। সারা বাংলাদেশের সকল সাংবাদিক এক হয়ে তার প্রতিবাদ করবে ও শাস্তি দাবি করবে।'

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়ে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে একটি চিঠি দিয়েছে। কিন্তু ওই চিঠিতে প্রশাসন সুকৌশলে তাদের দায় এড়িয়ে গেছে। যেখানে জিনিয়াকে নির্দোষ বলা হয়নি। উল্টো বিভাগের শিক্ষকগণ দুঃখ প্রকাশ করে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন বলে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ রয়েছে। এর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের গোয়ার্তুমিপূর্ণ মনোভাবই প্রকাশ পায় বলে দাবি করে বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস ফেডারেশন। 

সেজন্য পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জিনিয়াকে নির্দোষ ঘোষণাসহ শামস জেবিন ও অন্য সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও হয়রানির বিচার, ঘটনায় জড়িত প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের শাস্তি এবং ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবিতে আজ সারাদেশে একযোগে এই প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করছে বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস ফেডারেশন ও বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সংগঠনগুলো।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ওই শিক্ষার্থী ফাতেমা তুজ জিনিয়া ইংরেজি সংবাদপত্র ‘ডেইলি সান’-এর প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করছিলেন। ‘একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কী হওয়া উচিত’ এমন শিরোনামে একটি স্ট্যাটাসে দেয়ার অভিযোগ তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি

Share on: