মুহাম্মদ দিদারুল ইসলামের কবিতা 'পাহাড়ি কন্যা'

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ২ঃ১৮
মুহাম্মদ দিদারুল ইসলামের কবিতা 'পাহাড়ি কন্যা'
মুহাম্মদ দিদারুল ইসলামের কবিতা 'পাহাড়ি কন্যা'

পাহাড়ি কন্যা

মুহাম্মদ দিদারুল ইসলাম

 

সন্ধ্যাবেলা হাঁটছি একা

নীরব থাকা বনে

দিঘির জলে শাপলা দেখে

পড়ল স্মৃতি মনে।

 

শাপলা যেন জিজ্ঞাসিল

তোমার প্রিয়া কই?

শাপলা ফুলের দিকে এবার

অবাক চেয়ে রই।

 

পাশে থাকা কদম্ব গাছ

উঠল আবার বলে

কোথায় কবির প্রিয়া তুমি

দ্রুত এসো চলে।

 

সত্যি যদি আসতে তুমি

কতই ভালো হতো!

বনের সবাই থাকতো খুশি

তোমার আমার মতো।

 

আসলে তুমি ভালোবাসা

দিতাম দুহাত ভরে

অনেক ভালবেসে তোমায়

নিতাম আপন করে।

 

অমাবস্যায় হাত ধরতাম

দেখতো না তো কেহ

নীল আকাশের নীল শাড়িতে

জড়িয়ে দিতাম দেহ।

 

সবুজ চাদর আনতে যেতাম

সবুজ গাছের কাছে

শিউলি আবার বলতো ডেকে

মালা গাঁথা আছে।

 

শিউলি ফুলের সেই সে মালা

দিতাম খোপায় পরে

দুজন মিলে ঘুরতে যেতাম

সাগর পাড়ের চরে।

 

আবার যেতাম মেঠো পথে

সবুজে ঘেরা বনে

তোমায় দেখে বলতো সবে

তুমি সবুজ কনে।

 

মনে মনে হাসতাম আমি

একটু রাগের ছলে

মান অভিমান করতাম

অনেক ভালবাসি বলে।

 

আবার যেতাম পাহাড় পথে

রাঙাতে প্রেম ভূমি

পাহাড়বাসী বলতো আবার

পাহাড়ি কন্যা তুমি।

 

আগের মতোই হাসতাম আমি

তোমায় লাজুক দেখে

একটুখানি রাগতে তুমি

ভালোবাসা মেখে।

 

আমি আরো রাগিয়ে দিতাম

আবার হাসি দিয়ে

রাগের চলে আসতে তুমি

ভালোবাসা নিয়ে।

 

কপট রেগে বলতে আমায়

এই তুমি কেন হাসো?

মারবো তোমায় আজকে তুমি

আমার সাথে আসো।

 

আসতাম আবার সাগর পাড়ে

নামতে সাগর জলে

সাগর এবার গর্জে উঠত

ভয় দেখানোর ছলে।

 

শ্যামলা দেহে নীল শাড়িতে

খোপায় শিউলিমালা

সাগর পাড়ে কে গো তুমি?

নয়তো সাগর বালা।

 

সাগরের এই ভয়াল সুরে

উঠতে তুমি কেঁপে

ভয়ে আমায় জড়িয়ে ধরে

হঠাৎ ধরতে চেপে।

 

আবার আমি আগের মতই

দিতাম একটু হাসি

তখন বুঝতে তোমায় আমি

কত্তো ভালোবাসি।

 

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি

Share on: