রুপালি গিটার উদ্বোধন করে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করলেন সিটি মেয়র আজম নাছির উদ্দিন

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিতঃ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সময়ঃ রাত ১০ঃ৫৪
রুপালি গিটার উদ্বোধন করে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করলেন সিটি মেয়র আজম নাছির উদ্দিন
রুপালি গিটার উদ্বোধন করে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করলেন সিটি মেয়র আজম নাছির উদ্দিন

দিদার, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের কিংবদন্তি সন্তান আইয়ুব বাচ্চু। চট্টগ্রামে ছোটবেলায় নিজের মামার বাড়িতে বড় হলেও নিজের কোনো ব্যক্তিগত বাড়ি নির্মাণ করে যেতে পারেনি এই কিংবদন্তি শিল্পী। তবে যখনই সময় পেতেন নিজের মায়ের কবর জিয়ারত করতে এবং প্রিয়জনদের সাথে দেখা করতে ছুটে আসতেন বন্দরনগরী চট্টগ্রামে। মৃত্যুর পূর্বে ও অনেকবার চেষ্টা করে বার আউলিয়ার পূণ্যভূমি খ্যাত এই চট্টগ্রামে একটি নিজের থাকার ঘর তৈরি করে যেতে চেয়েছিলেন সকলের প্রিয় এই কিংবদন্তি শিল্পী।

মৃত্যুর পরে যখন চট্টগ্রামের জামিয়াতুল ফালা বিশ্ব মসজিদের মাঠে জানাজার নামাজ আদায় এবং শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য আইয়ুব বাচ্চু মরদেহ রাখা হয়েছিল তখন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জননেতা জনাব আ জ ম নাছির উদ্দিন ঘোষণা দিয়েছিলেন,চট্টগ্রামের এই কিংবদন্তি সন্তানের জন্য সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য কাজ করা হবে। অবশেষে সেই উপমহাদেশের কিংবদন্তি ব্যান্ড শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি সকলের মাঝে বেঁচে থাকতে নিজের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে বর্ণিল আয়োজনে নগরের প্রবর্তক মোড়ে স্থাপিত ‘রুপালি গিটার’ ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করেছেন সিটি মেয়র।

আজ বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রবর্তক মোড়ে এ উপলক্ষে বসেছিল বাচ্চু ভক্তদের মিলনমেলা।সেই সাথে উপস্থিত ছিলেন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন কর্মকর্তারা।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মেয়র আজম নাছির উদ্দীন বলেন, জনপ্রিয় ব্যান্ড শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি রক্ষার্থে স্থাপন করা হলো এ রুপালি গিটার। বাচ্চুর মতো প্রত্যেককে দেশ এবং সমাজের জন্য কাজ করে যেতে হবে। তাহলে তাদের জীবন ও কর্ম থেকে,স্মৃতি থেকে মৃত্যুর পরও সকল মানুষেরা প্রেরণা খুঁজে পাবে। বাচ্চু শুধুমাত্র চট্টগ্রাম বাসীর জন্য নয় তিনি বিশ্ববাসীর সামনে একজন রোল মডেল।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইয়ুব বাচ্চুর সহোদর ইরফান ছট্টু,চসিকের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম, চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা  এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন সংস্থা স্ক্রিপট এবং অডিওস ইঙ্কের কর্মকর্তা সহ বাচ্চুর ভক্ত সমর্থকেরা।

নগরীর সৌন্দর্য বর্ধনের প্রকল্প হিসেবে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে গিটারটি স্থাপন করা হয়েছে। কেডিএসের অর্থায়নে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে বাস্তবায়িত এ প্রকল্পের আওতায় রয়েছে সড়কের বিউটিফিকেশন, ওয়াকওয়ে নির্মাণ,দেয়ালে ম্যুরাল ও সবুজায়ন। সেই সাথে রুপালি গিটার এর পাশে রয়েছে দৃষ্টিনন্দন পানির ফোয়ারা এবং আইয়ুব বাচ্চুর জীবনী।

ভক্ত সমর্থকেরা মনে করছেন,শুধুমাত্র এই রুপালি গিটারের ভাস্কর্য নয় বাচ্চু তার কর্মের মধ্য দিয়ে সারা বিশ্বের কোটি বাঙ্গালীর হৃদয়ে অমরত্ব লাভ করবে।

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি

Share on: