লাইফস্টাইল শপ 'দ্যা স্টোর' নিয়ে আকিব

বার্তা জগৎ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ৯ জুলাই ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ১ঃ৫৭
লাইফস্টাইল শপ 'দ্যা স্টোর' নিয়ে আকিব
লাইফস্টাইল শপ 'দ্যা স্টোর' নিয়ে আকিব

 

আফজালুর ফেরদৌস রুমনঃ

আকিব রায়হান বাংলাদেশের শোবিজ জগতের অন্যতম জনপ্রিয় এবং পরিচিত একটি নাম। সাধারণত একজন ফ্যাশন ফটোগ্রাফার হিসেবে তিনি ফ্যাশন মিডিয়াতে কাজ করে যাচ্ছেন অত্যন্ত দক্ষতার সাথে। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তার দক্ষতা এবং কাজের প্রতি ডেডিকেশন দিয়ে তিনি নিজের নাম প্রতিষ্ঠিত করেছেন। বর্তমানে ফ্যাশন ফটোগ্রাফিরর পাশাপাশি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। তবে এই সকল ব্যস্ততার মধ্যেও বিগত দুই বছর ধরে লালন করা নিজের একটি স্বপ্ন কে সম্প্রতি বাস্তবে রুপ দিয়েছেন তিনি। সেটি হচ্ছে একটি অনলাইন লাইফ স্ট্যাইল শপ 'দ্যা স্টোর'। 

নিজের একটি অনলাইন বেইজড লাইফ স্ট্যাইল শপ খোলার ইচ্ছা থাকলেও ৯-৫ টা অফিস করে একা একা এটি বাস্তবায়ন করাটা বেশ কষ্টসাধ্য ছিল তার জন্য। এছাড়া ফটোগ্রাফার হিসেবেও কাজ করতে হচ্ছে ছুটির দিন গুলোতে। পরবর্তীতে তার এক সহকর্মী অমিত জামান এর সাথে এই প্ল্যানটি নিয়ে আলোচনা করা হয়। অমিত নিজেও এটি নিয়ে উৎসাহ দেখায়। দুজন মিলেই শুরু করার প্ল্যান করলেও তাদের সাথে যোগ দেন আকিবের কাছের একজন আত্নীয়। বর্তমানে তিনজন মিলেই 'দ্যা স্টোর' এর সকল কাজকর্ম নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ভবিষ্যতে এই অনলাইন লাইফস্টাইল শপটি নিয়ে আরো বড় পরিসরেই কাজ করতে চান তারা। এটি নিয়ে ই-কমার্স জগতেও যেতে চান তারা। ফ্যাশনের এ টু জেড সলিউশন নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা ব্যক্ত করেন তারা। 

 

 

আকিব জানান, ফ্যাশন রিলেটেড যে কোন পণ্যই তাদের স্টোরে পাওয়া যাবে। কোয়ান্টিটির থেকে কোয়ালিটির দিকেই নজর দিতে চান তিনি। কারণ প্রোডাক্টের মান যদি ভালো হয় তবে ক্রেতা আবারো আসবেন এই অনলাইন শপে। আর যেকোন প্রোডাক্টের ক্ষেত্রেই মান সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে। ক্রেতারা এই শপের প্রোডাক্ট নিয়ে সন্তুষ্ট থাকবেন বলে দাবি করেন তিনি। খুব অল্প পরিমানে জিনস, টি-শার্ট, শার্ট নিয়েই কাজ করবে 'দ্যা স্টোর' কিন্তু সেগুলোর গুণগত মানের ব্যাপারে কম্প্রোমাইজ করা হবেনা বলে জানান দক্ষ এই তরুণ। 

বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে নিয়মমাফিক কাজ করা আবার ফ্যাশন ফটোগ্রাফার হিসেবে আলাদা একটি মাধ্যমে কাজ করার পাশাপাশি এখন 'দ্যা স্টোর' নিয়েও ব্যস্ততা। সব মিলিয়ে ব্যস্ত সময় পার করা এই সদা হাস্যজ্বল আকিব জানান- 'আমি কাজ পাগল মানুষ। আমি কাজের মধ্যেই থাকতে পছন্দ করি। তাছাড়া ব্যবসার এই জায়গাতে আমার দুইজন পার্টনার আমাকে যথেষ্ট পরিমান সাপোর্ট দিচ্ছেন। তাই হয়তো এত কিছু সামলে আমি কাজগুলো করতে পারছি। এছাড়া পরিবার আর কাছের কিছু বন্ধু প্রতিনিয়তই উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে যা চলার পথকে অনেকটাই সহজ করে দিচ্ছে'। 

ডিজিটাল এই যুগে এসে বিশ্বের অনেক দেশের মতো বাংলাদেশেও এখন অনলাইন বেইজড অনেক শপে নিয়মিত কেনাবেচা চলছে। যারা নিজেদের পণ্যের মান বজায় রাখতে পারছেন তারাই টিকে থাকছেন এই প্রতিযোগিতার প্ল্যাটফর্মে।  বাংলাদেশের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে নিজেদের স্বপ্ন এবং সেটি পূরণ করার জন্য দক্ষতা ও পরিশ্রম করার মনোভাব নিয়ে কিছু করে দেখানোর ইচ্ছা নিয়ে 'দ্যা স্টোর' এবং এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের জন্য রইলো শুভকামনা।

বার্তা জগৎ২৪/ এম এ