ঢাকা, বুধবার, ৬ মাঘ ১৪২৭, ২০ জানুয়ারী, ২০২১

Facebook Twitter Instagram Linkedin Youtube

Logo

ইমোতে প্রেম, বিয়ের সব আয়োজনও সম্পন্ন, এলো না বর

শামীম
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৭ জানুয়ারী, ২০২১, ০১:৪৭
ইমোতে প্রেম, বিয়ের সব আয়োজনও সম্পন্ন, এলো না বর

শরীয়তপুরের সাথী আক্তার বাণীর (২২) সঙ্গে বছরখানেক আগে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় রাজশাহীর তরুণ সোহাগ হোসেনের (২৬)। এরপর বন্ধুত্ব, সাক্ষাৎ থেকে সম্পর্ক গড়ায় প্রেমে। একপর্যায়ে বিষয়টি পরিবারকে জানালে মেয়েকে ওই যুবকের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি হন অভিভাবকরা। সে অনুযায়ী গত ৩ জানুয়ারি বিয়ের দিন ঠিক করা হয়েছিল। কিন্তু সোহাগ কিংবা তার পরিবারের কেউই সেদিন মেয়ের বাড়িতে আসেনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জেলার জাজিরা উপজেলার পাচুখারকান্দি গ্রামের দরিদ্র ভাঙারি ব্যবসায়ী মালেক চৌকিদারের মেয়ে সাথী আক্তার। বছরখানেক আগে মোবাইল অ্যাপস ইমোর মাধ্যমে ওই যুবকের সঙ্গে পরিচয়ের সূত্রে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার। নিজেকে পুলিশ সদস্য পরিচয় দিয়ে সোহাগ জানান, তার বাড়ি রাজশাহী শহরে। পুলিশ সদস্য হিসেবে কর্মরত আছেন শরীয়তপুরের নড়িয়া থানায়।

প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে সোহাগ বিয়ের প্রস্তাব দিলে ওই তরুণী বিষয়টি অভিভাবকদের জানান। পরে তার অভিভাবকরা সোহাগ ও তার চাচা পরিচয়ে এক ব্যক্তির সঙ্গে মোবাইল ফোনে আলাপ-আলোচনার পর বিয়েতে মত দেন।

গত ৩ জানুয়ারি বিয়ের দিন ঠিক করা হয়। অনুষ্ঠানে ৪০ জন বরযাত্রীর আসার কথা। এরই মধ্যে একদিন সোহাগ জানান, আইডি কার্ড হারিয়ে যাওয়ায় তিনি বেতনের টাকা তুলতে পারছেন না। তাই বিয়ের খরচের জন্য মেয়েটির পরিবারের কাছে এক লাখ টাকা দাবি করেন তিনি। জানান, বিয়ের আগে দাবিকৃত টাকা না পেলে বিয়ে করা সম্ভব না।

এসব কথার পরিপ্রেক্ষিতে মেয়েটির বাবা চার শতাংশ জমি বিক্রি করেন এবং আরও এক লাখ টাকা ঋণ করেন। বিয়ের এক সপ্তাহ আগে তারা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ওই যুবককে ৭০ হাজার টাকা পাঠান।

বিয়ের আগের রাত পর্যন্ত সাথী ও তার পরিবারের সঙ্গে সোহাগের ফোনে যোগাযোগ ছিলো। ৩ জানুয়ারি সকাল থেকে বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলতে থাকে এবং যথারীতি অতিথিরাও আসতে থাকেন। এরইমধ্যে বরযাত্রী কতদূর, তা জানার জন্য বাণীর পরিবার সোহাগের মোবাইল ফোনে কল করলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এরপর তার দেয়া একাধিক নম্বরে বার বার কল করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় সাথীর বাড়ির সবাই চিন্তিত হয়ে পড়েন। শুরু হয় নানা গুঞ্জন। থেমে যায় বিয়ের আয়োজন ও কোলাহল। দিশেহারা হয়ে পড়ে মেয়েটির পরিবার।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী তরুণী বলেন, ‘আমার পরিবার গরিব তাই বেশি পড়ালেখার সুযোগ হয়নি।

৫ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছি। সোহাগের সঙ্গে প্রথম পরিচয় ইমো গ্রুপের মাধ্যমে। তারপর মোবাইল ফোনে কথা হতো, পরে আমার সঙ্গে সম্পর্ক হয়। ও আমাকে বলেছে, ওর বাড়ি রাজশাহী শহরে এবং সে নাকি নড়িয়া থানায় পুলিশে চাকরি করে। নড়িয়াতে আমি তার সঙ্গে দুইবার দেখা করেছি। সে আমাকে বিয়ে করবে বলেছিল। তাকে বিশ্বাস করে আমার পরিবার ৭০ হাজার টাকা পাঠিয়েছে এবং বিয়ের আয়োজন করে। কিন্তু সে আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। আমাদের সর্বনাশ হয়ে গেছে।

আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।’

তিনি বলেন, ‘আমার মোবাইলে সোহাগের একটি ছবি আছে। ছবিতে তিনি সিকিউরিটি গার্ডের ইউনিফর্ম পড়ে আছেন। তিনটি মোবাইল নম্বরে তার সঙ্গে আমার কথা হতো।’

বাণীর বাবা মালেক চৌকিদার বলেন, ‘ওই যুবকের সঠিক পরিচয়ও কেউ জানেন না। আমি গরিব মানুষ। লেখাপড়া জানি না। সহায়-সম্পত্তি তেমন কিছুই নাই। দিন আনি, দিন খাই।

চার ছেলে-মেয়ের মধ্যে বাণীই সবার বড়। দুই কড়া জমি ছিলো, তাও মেয়ের বিয়ের জন্য বিক্রি করে দিছি। টাকা-পয়সা খুইয়ে শেষ পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে দিতে পারলাম না। আমাদের মানসম্মান সব গেছে। এখন আমার মেয়ের কী হবে?’

এ ব্যপারে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার জাগো নিউজকে বলেন, ‘এ বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবার এখনও কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
যোগাযোগ করা হলে নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, ‘ওই ঘটনার বিষয় আমার জানা নেই। নড়িয়া থানায় গত তিন বছরে সোহাগ নামের কোন পুলিশ সদস্য ছিল না। এখনও নাই।

জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ আশ্রাফুজ্জামান ভূইয়া জাগো নিউজকে বলেন, ‘ভুক্তভোগী পরিবার যদি লিখিত অভিযোগ করে, তাহলে মোবাইল ট্র্যাকিং করে ওই যুবকের তথ্য জানা যেতে পারে। এটা একটা দুঃখজনক ঘটনা।

বার্তাজগৎ২৪ / এম এ

আরো পড়ুন:

কুড়িগ্রামে স্ত্রী‌কে হত‌্যার দা‌য়ে স্বামীর মৃত‌্যুদণ্ড

জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ধর্ষণের শিকার

হঠাৎ চট্টগ্রাম নগরীর ৫ থানার ওসি পদে রদবদল

৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ

ঘণ কুয়াশায় ফেরি চলাচল বন্ধ, আটকে আছে ৬টি ফেরি



মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় সার্জেন্টকে পিটিয়েছে যুবক

বার্তা জগৎ ডেস্ক
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১, ০৫:২৯
আহত পুলিশ সদস্য
আহত পুলিশ সদস্য

মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় পুলিশের এক সার্জেন্টকে পিটিয়ে জখম করেছে এক যুবক। মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে রাজশাহী নগরীর ঐতিহ্য চত্বরে এ মারধরের ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্য বিপুল ভট্টাচার্য বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

পুলিশের দেয়া তথ্যমতে, রাস্তায় চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনের কাগজ পরীক্ষা করছিলেন সার্জেন্ট বিপুল। এসময় এক যুবককে মোটরসাইকেল থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চান তিনি।

কাগজ দেখা নিয়ে যুবকের সাথে কথা কাটাকাটি হয় এ পুলিশ সদস্যের। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ঐ যুবক চড়াও হয়। কাঠের ভাঙা অংশ দিয়ে আঘাত করে বিপুলের শরীরে। এতে ঐ পুলিশ সদস্যের হাত ভেঙে যায় ।

শরীরের বেশ কয়েক জায়গায় জখম হয়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। মোটরসাইকেল জব্দের পাশাপাশি যুবককে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।


আরো পড়ুন:

ঢাকায় যে পরিমাণ টাকা আছে সারাদেশে তা নেই

শিল্প খাতের ৪৮ ব্যবসায়ী হচ্ছেন সিআইপি

চট্টগ্রামে করোনার টিকা মিলবে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি

ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি'র লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতিকে

ঝামেলাহীন বাসা বদল । বার্তাজগৎ২৪



দেশের হিজড়ারা এবার আদমশুমারিতে আলাদা পরিচয় পাচ্ছেন

খোরশেদ আলম
প্রকাশিত: রবিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২১, ০১:৩৬
দেশের হিজড়ারা এবার আদমশুমারিতে আলাদা পরিচয় পাচ্ছেন
ফাইল ফটো

এবার আদমশুমারিতে হিজড়ারা আলাদা পরিচয় পাচ্ছেন। নারী বা পুরুষ নয়, প্রথমবারের মতো আদমশুমারিতে তাদের লিঙ্গ পরিচয়ের ভিত্তিতে গণনা করা হবে। সরকার বলছে, দেশে যদি হিজড়াদের প্রকৃত সংখ্যা নির্ধারণ করা হয় তবে তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের পরিকল্পনা গ্রহণ করা আরও সহজ হবে। হিজড়ারা বিষয়টি স্বাগত জানালেও তারা আশ্বস্থ হতে পারছেনা। তারা মনে করেন এর আগের সরকারগুলোও এ জাতীয় বহু উদ্যোগ নিয়েছিল, কিন্তু তাদের জীবনে এর কোন প্রভাব পড়েনি।

এ বছর দেশে ষষ্ঠ আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হবে। লিঙ্গ স্বীকৃতি পাওয়ার পর এবার আদমশুমারিতে হিজড়া লিঙ্গের পাশাপাশি হিজড়া লিঙ্গ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে।
সমাজসেবা অধিদফতরের মতে, দেশে হিজড়াদের সংখ্যা দশ হাজারের কিছুটা বেশি। তবে এই সংখ্যাটি অনুমান নির্ভর।

হিজড়াদের মতে, তাদের সংখ্যা সারাদেশে এক লক্ষের কাছাকাছি।

সংখ্যার এই বিভ্রান্তি দূর করতে, ২০২১ সালের আদমশুমারিতে হিজড়ারা পুরুষ-মহিলাদের পাশাপাশি হিজড়াদের অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তারা বলেছে বিভিন্ন গুরু মা'রা বিভিন্ন ডেড়ায় বসবাস করেন তাদের কাছে সঠিক সংখ্যা রয়েছে। আদমশুমারীতে তাদের পরামর্শ নিলে সেক্ষেত্রে সঠিক সংখ্যাটি পাওয়া যেতে পারে।

সরকারসহ বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার কর্মকর্তারা মনে করেন, হিজড়াদের সঠিক সংখ্যা জানা থাকলে তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের জন্য পরিকল্পিত প্রকল্প গ্রহণ করা আরও সহজতর হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, "এই শুমারি আমাদের তাদের সংখ্যা সম্পর্কে ধারণা দেবে।" বাজেট করার সময় আমরা তাদের কতটা অনুদান দিতে পারি তা নির্ধারণ করা আমাদের পক্ষে আরও সহজ করে তুলবে। এখন আমরা অনুমান করছি যদি তাদের যেকোন জায়গায় আরও সদস্য থাকে তবে আমরা সে অনুযায়ী প্রকল্প গ্রহণ করতে পারবো।

অন্যদিকে, জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো, ইতিমধ্যে পৃথকভাবে বসবাস করা এবং ভাসমান পরিবারের সঠিক সংখ্যা সম্পর্কে সন্দেহ পোষণ করছে।



আরো পড়ুন:

কুড়িগ্রামে কবর খুঁড়তে চারদিকে ভেসে উঠলো আরবি হরফ

বাংলাদেশ ক্রিকেটের কুয়াশাচ্ছন্ন যুগের আলোকবর্তিকা মোহাম্মদ রফিক

সড়ক দুর্ঘটনায় অভিনেত্রী আশা চৌধুরী নিহত

বিলাসবহুল স্পোর্টস বাইক আনল কাওয়াসাকি

জঙ্গিবাদের শিকড় উপড়ে ফেলতে হবে: আইজিপি

স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নে কঠোর আ.লীগ

কুবিতে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

জামিন পেলেন এরফান সেলিম । বার্তাজগৎ২৪

নূরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২৮ জানুয়ারি

কুড়িগ্রামে ফেলানী হত্যার ১০, আজও বিচার পায়নি পরিবার!

×
সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

শরীয়তপুরের সাথী আক্তার বাণীর (২২) সঙ্গে বছরখানেক আগে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় রাজশাহীর তরুণ সোহাগ হোসেনের (২৬)। এরপর বন্ধুত্ব, সাক্ষাৎ থেকে সম্পর্ক গড়ায় প্রেমে। একপর্যায়ে বিষয়টি পরিবারকে জানালে মেয়েকে ওই যুবকের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি হন অভিভাবকরা। সে অনুযায়ী গত ৩ জানুয়ারি বিয়ের দিন ঠিক করা হয়েছিল। কিন্তু সোহাগ কিংবা তার পরিবারের কেউই সেদিন মেয়ের বাড়িতে আসেনি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়,