ঢাকা, বুধবার, ৭ মাঘ ১৪২৭, ২০ জানুয়ারী, ২০২১

Facebook Twitter Instagram Linkedin Youtube

Logo

কুড়িগ্রামে ফেলানী হত্যার ১০, আজও বিচার পায়নি পরিবার!

মনিরুজ্জামান, ভূরুঙ্গামারী:
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৭ জানুয়ারী, ২০২১, ০১:১৭
কুড়িগ্রামে ফেলানী হত্যার ১০, আজও বিচার পায়নি পরিবার!
ফাইল ফটো

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীর অনন্তপুর সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে কিশোরী ফেলানী হত্যার ১০ বছর পূর্তি হলো আজ।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ’র গুলিতে অনন্তপুর সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ায় নির্মম ভাবে হত্যার শিকার হয় কিশোরী ফেলানী। গুলি করে হত্যার পর কাঁটা তারের বেড়ায় ফেলানীর দেহ ঝুলিয়ে রাখে বিএসএফ। পানি পানি বলে চিৎকার করলেও সে আত্ম চিৎকার ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর কর্ণকুহরে প্রবেশ করেনি। দীর্ঘ ছয় ঘন্টা যাবত কাটা তারের বেড়ায় ঝুলতে থাকে ফেলানী লাশ।

জানা গেছে, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউনিয়নের কলোনিটারী গ্রামের নুরুল ইসলাম নুরু পরিবার নিয়ে থাকতেন ভারতে দিল্লিতে। মেয়ে ফেলানীর বিয়ে ঠিক হয় বাংলাদেশে। মেয়ের বিয়ে দিতে ২০১১ সালের ৬ জানুয়ারি মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে আসেন অনন্তপুর সীমান্তে। ৭ জানুয়ারি ভোরে ফুলবাড়ী অনন্তপুর সীমান্ত দিয়ে কাঁটাতারের উপর মই বেয়ে নামার সময় বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের গুলিতে মর্মান্তিক মৃত্যু হয় ফেলানীর।

লাশ ঝুলে থাকে কাঁটাতারের বেড়ায়।

এনিয়ে দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠলে বিশ্বের মানবাধিকার সংগঠনগুলোর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে ভারত। বিএসএফ এর বিশেষ আদালতে দুই দফায় বিচারিক রায়ে খালাস পান অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষ।

এ রায়কে প্রত্যাখান করে ভারতীয় মানবাধিকার সংগঠন মাসুম এর সহযোগিতায় ভারতীয় সুপ্রিমকোর্টে রিট আবেদন করে ফেলানীর পরিবার।
এরপর কয়েক দফা ফেলানী হত্যার বিচার কার্য অনুষ্ঠিত হয়। তবে বিচারকার্য এখনও অমীমাংসিত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফেলানীর বাবা-মা।

২০১৪ সালের ২২ সেপ্টেম্বর ফেলানী হত্যার বিচার পুনরায় শুরু হলে ১৭ নভেম্বর আবারও আদালতে সাক্ষ্য দেন ফেলানীর বাবা নুরুল ইসলাম। ২০১৫ সালের ২ জুলাই এ আদালত পুনরায় আসামি অমিয় ঘোষকে খালাস দেন।
রায়ের পরে একই বছর ১৪ জুলাই আবার ‘মাসুম’ ফেলানীর বাবার পক্ষে দেশটির সুপ্রিম কোর্টে রিট পিটিশন করে।

ওই বছর ৬ অক্টোবর রিট শুনানী শুরু হয়। পরের দুই বছর কয়েক দফা শুনানী পিছিয়ে যায়।
পরে ২০১৮ সালের ২৫ জানুয়ারি শুনানী দিন ধার্য হলেও শুনানী হয়নি। এরপর ২০১৯ এবং ২০২০ সালে কয়েকবার শুনানীর তারিখ ধার্য্য হলেও শেষ পর্যন্ত তা সম্পন্ন হয়নি। এ অবস্থায় মেয়ের হত্যাকারীর বিচার না পেয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন ফেলানীর পরিবার ও এলাকাবাসী।
ফেলানীর বাবা নূরুল ইসলাম জানান, আমি আমার মেয়ে ফেলানী হত্যার বিচার চেয়ে অনেক ঘুরেছি মানবাধিকার সংস্থাসহ বহুজনের কাছে গিয়েছি। কিন্তু কোন ফল পাইনি।
মেয়ে আমার চলে যাওয়ার ১০ বছর হলো, আজও তার বিচার পেলাম না। বার বার বিচারের তারিখ বদলায়।

তাহলে বিচার পাবো কিভাবে। ২০২০ সালের ১৮ মার্চ করোনার পূর্বে শুনানীর তারিখ থাকলেও তা হয়নি। এখন আর কোন খোঁজ খবর জানিনা।
ফেলানীর মা জাহানারা বেগম জানান, ফেলানী হত্যার এতো বছর হয়ে গেছে আজও বিচার পাইলাম না। আমি দুই দেশের সরকারের কাছে সঠিক বিচার দাবি করছি।

কুড়িগ্রামের পাবলিক প্রসিকিউটর এস এম আব্রাহাম লিংকন জানান, ভারত ও বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক যেমন রয়েছে তেমনি বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতও এর সুষ্ঠু বিচার আশা করে।
ফেলানী হত্যার বিচার প্রথমত: ভারতই শুরু করে। কিন্তু বিএসএফ সঠিক সিদ্ধান্ত না দেওয়ায় সুপ্রিমকোর্টে বিচারটি গড়ায়। ফলে সেখান থেকেই রায়টি আসবে।


তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের কয়েক দফা শুনানীর তারিখ পিছিয়ে গেছে। বর্তমান কোভিট-১৯ এর জন্য সেখানে ভার্চুয়াল কোর্ট চলছে। যদি ভার্চুয়ালিও বিচারের শুনানি হয় তাহলে দ্রুত এর নিষ্পত্তি হতে পারে। অন্যথা পরিস্থিতি ভালো হলে রিটটির শুনানী হবে। আশা করছি ফেলানীর পরিবার ন্যায় বিচার পাবে।

বার্তাজগৎ২৪ / এম এ

আরো পড়ুন:

কুড়িগ্রামে স্ত্রী‌কে হত‌্যার দা‌য়ে স্বামীর মৃত‌্যুদণ্ড

জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ধর্ষণের শিকার

হঠাৎ চট্টগ্রাম নগরীর ৫ থানার ওসি পদে রদবদল

৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ

ঘণ কুয়াশায় ফেরি চলাচল বন্ধ, আটকে আছে ৬টি ফেরি



মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় সার্জেন্টকে পিটিয়েছে যুবক

বার্তা জগৎ ডেস্ক
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১, ০৫:২৯
আহত পুলিশ সদস্য
আহত পুলিশ সদস্য

মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় পুলিশের এক সার্জেন্টকে পিটিয়ে জখম করেছে এক যুবক। মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে রাজশাহী নগরীর ঐতিহ্য চত্বরে এ মারধরের ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্য বিপুল ভট্টাচার্য বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

পুলিশের দেয়া তথ্যমতে, রাস্তায় চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনের কাগজ পরীক্ষা করছিলেন সার্জেন্ট বিপুল। এসময় এক যুবককে মোটরসাইকেল থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চান তিনি।

কাগজ দেখা নিয়ে যুবকের সাথে কথা কাটাকাটি হয় এ পুলিশ সদস্যের। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ঐ যুবক চড়াও হয়। কাঠের ভাঙা অংশ দিয়ে আঘাত করে বিপুলের শরীরে। এতে ঐ পুলিশ সদস্যের হাত ভেঙে যায় ।

শরীরের বেশ কয়েক জায়গায় জখম হয়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। মোটরসাইকেল জব্দের পাশাপাশি যুবককে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।


আরো পড়ুন:

ঢাকায় যে পরিমাণ টাকা আছে সারাদেশে তা নেই

শিল্প খাতের ৪৮ ব্যবসায়ী হচ্ছেন সিআইপি

চট্টগ্রামে করোনার টিকা মিলবে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি

ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি'র লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতিকে

ঝামেলাহীন বাসা বদল । বার্তাজগৎ২৪



ভাড়া না দেওয়ায় শিশুসহ ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ, শিশুর মৃত্যু

বার্তা জগৎ নিজস্ব প্রতিবেদন
প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১,০৬:০১
ভাড়া না দেওয়ায় শিশুসহ ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ অবস্থায় শিশুর মৃত্যু
বাড়ি মালিকের তালাবস্থায় ভাড়াটিয়ার বাচ্চার মৃত্যু

খুলনা নগরীর হরিণটানা রিয়াবাজার এলাকায় ভাড়া না পেয়ে ৫ দিন শিশু সন্তানসহ এক ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। তালাবদ্ধ অবস্থায় বালতির পানিতে ডুবে শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার শিশুটির বাবা-মা বাড়িওয়ালা মো. নওশেরকে দায়ি করে থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ তা গ্রহণ না করে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন। পরে তারা আদালতে উপস্থিত হয়ে আইনজীবীদের কাছে অভিযোগ করেন। মৃত শিশুটির নাম আজিজা তাসমিয়া (৬ মাস)।  

জানা যায়, ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে কাঠের ডিজাইন মিস্ত্র ইমদাদুল ইসলাম মাসিক ৪ হাজার টাকা চুক্তিতে রিয়াবাজার এলাকায় ২টি রুম ভাড়া নেন। কিন্তু চলতি মাসের অগ্রিম ভাড়া দিতে না পারায় ৬ জানুয়ারি থেকে ঘরে শিশু সন্তানসহ স্ত্রী তামান্নাকে তালাবদ্ধ করে রাখে বাড়িওয়ালা নওশের। 

তামান্না ইসলাম জানান, তালাবদ্ধ অবস্থায় গত ১১ জানুয়ারি দুপুরে শিশুটি বাসার ভিতরে বালতির পানির মধ্যে উল্টে পড়ে যায়। ঘরে এসে তিনি শিশুটিতে উদ্ধার করলেও বাইরে থেকে ঘর তালাবদ্ধ থাকায় দ্রুত শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছে নিতে পারেননি।

 

স্থানীয় ইউপি সদস্যের ভাষ্যানুযায়ী, শিশুটির মা বাসার জানালা দিয়ে চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ঘরের তালা ভেঙ্গে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে শিশুটি মারা যায়।



আরো পড়ুন:

ট্রাম্পকে নজিরবিহীন দ্বিতীয়বারের জন্য অভিশংসন করা হয়েছে

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৯ প্রদান

সৌরভের অসুস্থতায় 'স্বাস্থ্যকর' তেলের বিজ্ঞাপন নিয়ে নেট দুনিয়ায় ব্যাপক ট্রোল

ভূরুঙ্গামারীতে মাদক উদ্ধারে গিয়ে আর্মস পুলিশের ২ সদস্য গুরুত্বর আহত

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফেব্রুয়ারিতে খুলছে স্কুল-কলেজ

ওয়াশিংটন ও ভার্জিনিয়ায় কারফিউ জারি

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ২৩, শনাক্ত ৫৬৯ এবং সুস্থ ৬৮১

গত ২৪ ঘন্টায় (১৪ জানু.) করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৮১৩ এবং সুস্থ ৮৮৩

সৌদিতে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা ব্যবহার করছে বাংলাদেশি পাসপোর্ট

বিশ্বনাথ প্রবাসীদের স্বপ্নের ওয়ান পাউন্ড হসপিটালের অফিস উদ্ভোধন ও মতবিনিময় সভা

×
সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীর অনন্তপুর সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে কিশোরী ফেলানী হত্যার ১০ বছর পূর্তি হলো আজ। ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ’র গুলিতে অনন্তপুর সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ায় নির্মম ভাবে হত্যার শিকার হয় কিশোরী ফেলানী। গুলি করে হত্যার পর কাঁটা তারের বেড়ায় ফেলানীর দেহ ঝুলিয়ে রাখে বিএসএফ। পানি পানি বলে চিৎকার করলেও সে আত্ম চিৎকার ভারতীয় সীমান্ত