ঢাকা, শনিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৬ জানুয়ারী, ২০২১

Facebook Twitter Instagram Linkedin Youtube

Logo

ঝামেলাহীন বাসা বদল । বার্তাজগৎ২৪

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:
প্রকাশিত: সোমবার, ০৪ জানুয়ারী, ২০২১, ০১:৪৯
ঝামেলাহীন বাসা বদল

মাসের শেষ বা প্রথম সপ্তাহে বালিশ–তোশক, হাঁড়ি–পাতিলের লটবর নিয়ে শহরের পথে ঠেলাগাড়ি বা ট্রাকের চলতে থাকার দৃশ্যটি খুব চেনা। ঢাকা শহরের বাসিন্দাদের বেশির ভাগই থাকেন ভাড়া বাড়িতে। চাকরি বা ব্যক্তিগত কারণে বাসা বদলও ভাড়াটিয়া জীবনযাপনের নিয়মিত অনুষঙ্গ।

বাসা বদলানো মানেই ঝামেলা। এ থেকে মুক্তি দিতে বাসা বদলের সুবিধা দিতে ঢাকা শহরে কাজ করছে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান। শুধু ফোনে বা অনলাইনে ফরমাশ দিলেই চলবে। প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিজস্ব লোকবল দিয়ে হাজির হয়ে যাবে। আসানের সঙ্গে বাসা বদল পর্ব সমাধান করবে তারা নির্দিষ্ট খরচার বিনিময়ে।

সম্প্রতি এমন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বাসা বদল করা কাউসার আলম খুসরু বলেন, বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে তিনি চাকরি করেন।

থাকতেন ধানমন্ডি এলাকায়। ব্যক্তিগত কারণে তিনি বনানীতে বাসা বদলের সিদ্ধান্ত নেন। খোঁজাখুঁজি করে পছন্দমতো একটি বাসাও পান। পরে বাসা বদলের দায়িত্ব দেন একটি বাসা বদলকারী প্রতিষ্ঠানকে। তারাই বাসার মালামাল গোছানো, বাঁধাছাঁদা করা, নতুন বাসায় নিয়ে যাওয়া, ইলেকট্রিকসামগ্রী লাগিয়ে দেওয়াসহ সব কাজ করেছেন। এতে তাঁর ২০-২৫ হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে।

রাজধানীতে প্রায় ১০ বছর ধরে বাসা বদলের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বাসা বদল
 (www.basabodol.com)। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার কাউসার আলম খুসরু বলেন, বাসা বদলের পাশাপাশি অফিস বদল বা স্থানান্তরের কাজও তাঁরা করেন। প্রতি মাসে ৪০-৬০টি বাসা বা অফিস বদলের ফরমাশ পায় তাঁর প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, ফরমাশ পাওয়ার পর সরেজমিনে তাঁরা বাসা বা অফিস পরিদর্শন করেন। এরপর কী পরিমাণ মালামাল সরাতে হবে, সে অনুযায়ী খরচ নির্ধারণ করেন। বাসা বদলের পাশাপাশি প্যাক এন্ড শিফট  (www.packnshift.com) ও দরকারি  (www.dorkary.com) নামের প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও জড়িত আছেন বলে জানিয়েছেন। বাসা বদলের সময় কোনো মালামালের ক্ষতি হলে কিংবা কোনো কিছু হারিয়ে গেলে বাজারমূল্য অনুযায়ী তার ক্ষতিপূরণও দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন কাউসার আলম খুসরু।

প্যাক অ্যান্ড শিফট নামের প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৮ বছর আগে প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা শহরে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে বাসা বদলের ব্যবসা শুরু করে। দীর্ঘ ১৮ বছরে প্রতিষ্ঠানটি সাবেক রাষ্ট্রপতি, রাষ্ট্রদূত, সচিব, কবি, সাহিত্যিকসহ নানা শ্রেণি–পেশার মানুষের বাসা বদল করেছে বলে দাবি করা হয়েছে।

এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা গেছে তাদের অনেকেরই নিজস্ব পরিবহন ও দক্ষ শ্রমিক, ইলেকট্রিশিয়ান, এসি মিস্ত্রি, থাই মিস্ত্রি, স্যানিটারি মিস্ত্রি, কাঠমিস্ত্রি, পেইন্টারসহ বিভিন্ন দক্ষ লোকবল আছে। তারা কাচের মালামাল বা ক্রোকারিজ ও শৌখিন অ্যান্টিকজাতীয় মূল্যবান সামগ্রী যত্নের সঙ্গে খুলে মোড়ক করে আবার নতুন বাসায় লাগিয়ে দেয়। এ ছাড়া নতুন বাসায় নতুন শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র, টিভি, ফ্যান, লাইট, খাট, গিজার, চুলা লাগিয়ে দেওয়া হয়।

এভাবে বাসা বদল করতে কত খরচ হবে, তা নির্ধারণ করে বাসা বা অফিসের আকার, পথের দূরত্ব, মালামালের পরিমাণ, কত তলা থেকে নামবে আর কত তলায় উঠবে, এসব বিষয়ের ওপর। মুভ অ্যান্ড সেটেলের তথ্য অনুযায়ী, শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র স্থানান্তরে ২ হাজার ২০০ থেকে ৪ হাজার ৫০০ টাকা, গিজার ৩ হাজার টাকায়, আইপিএস ১ হাজার ৮০০ টাকায়, টেলিভিশন ১ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকায়, প্রতিটি সিলিং ফ্যান ২৫০ টাকায়, টিউবলাইট ২০০ টাকায়, আলমারি ১ হাজার ৮০০ থেকে সাড়ে চার হাজার টাকায়, ওয়াশিং মেশিন ১ হাজার ২০০ টাকায় স্থানান্তর করা হয়। মালামাল বাঁধার কাজ করায় নিয়োজিত প্রতিজনকে দিতে হয় ৮০০ টাকা। সব মিলিয়ে খরচের অঙ্কটি বেশ স্বাস্থ্যবানই হয়ে ওঠে। ঝামেলা এড়াতে চাইলে ব্যয়ভার বহনের সামর্থ্য তো থাকতেই হবে।

বার্তাজগৎ২৪ / এম এ

আরো পড়ুন:

কুতুবদিয়ায় জন্ম নিবন্ধন ফরম স্বাক্ষরে ঘুষ বাণিজ্য

ভাড়া না দেওয়ায় শিশুসহ ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ, শিশুর মৃত্যু

কক্সবাজার টেকনাফ, নয়াপাড়া, মোছনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুনে পুড়ে গেছে ৫০০ শতাধিক ঘর

ফুলকপির মূল্য কম; ট্রাক ভাড়া না দিয়েই পালিয়ে গেলেন দুই ব্যবসায়ী

চসিক পরিচালিত স্কুল গুলোতে ভর্তির লটারি শুরু ১৩ জানুয়ারি থেকে



বর্তমান শৈত্যপ্রবাহ আরও দু'দিন অব্যাহত থাকতে পারে

খোরশেদ আলম
প্রকাশিত: শনিবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২১, ০১:১২
বর্তমান শৈত্যপ্রবাহ আরও দু'দিন অব্যাহত থাকবে
শৈত্যপ্রবাহে জীবনযাত্রা

বর্তমান শৈত্যপ্রবাহ আরও দু'দিন অব্যাহত থাকবে বলে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন।

গতকাল আবহাওয়ার পূর্বাভাসানুযায়ী, টাঙ্গাইল, গোপালগঞ্জ, ময়মনসিংহ, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল, রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলসহ রংপুর বিভাগে হালকা শৈত্যপ্রবাহ বিরাজ করছে এবং তা অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে। মধ্যরাত থেকে সকাল অবধি মাঝারি থেকে ভারী কুয়াশা পড়তে পারে দেশের নদীর অববাহিকায়। দেশের অন্যান্য অঞ্চলে হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকতে পারে।

এ ছাড়া আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, বর্তমানের শৈত্যপ্রবাহ আরও দু'দিন অব্যাহত থাকতে পারে। এরপর আস্তে আস্তে আবার তাপমাত্রা বাড়বে। জানুয়ারি মাসে সাধারণত ঠান্ডা থাকে, তবে আশা করা যায়, ঠান্ডা অবস্থান করা এলাকা বাদে অন্যসব এলাকায় শীত ছড়ানোর সম্ভাবনা কম।

আবহাওয়া অফিস আরও জানায়, তাপমাত্রা যখন ৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকে তখন এটিকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলা হয়, মাঝারি ঠান্ডা যদি এটি ৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে হয় এবং তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলা হয় যখন এরও নীচে তাপমাত্রা নেমে যায়। গতকাল নওগাঁর বদলগাছিতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬.৫ দশমিক ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আরো পড়ুন:

ঢাকায় যে পরিমাণ টাকা আছে সারাদেশে তা নেই

শিল্প খাতের ৪৮ ব্যবসায়ী হচ্ছেন সিআইপি

চট্টগ্রামে করোনার টিকা মিলবে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি

ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি'র লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতিকে

ভূরুঙ্গামারীতে সোনাহাট স্থল বন্দরে আমদানি রফতানিকারক সমিতির ধর্মঘট



৬০ পৌরসভায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:
প্রকাশিত: শনিবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২১, ১১:৫৬
৬০ পৌরসভায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে
৬০ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ

দ্বিতীয় পর্যায়ে ৬০টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। সকাল আটটায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত চলবে। ৮০টি পৌরসভার মধ্যে ২৯টিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এবং ৩১টিতে ব্যালটে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ জেলা, বগুড়ার সারিয়াকান্দি ও সান্তাহার, নওগাঁর নাজিপুর, কাকানহাট ও আরানী, নাটোরের নলডাঙ্গা, সিরাজগঞ্জের কাজীপুর, পাবনার ফরিদপুর, মেহেরপুরের গাংনী, কুষ্টিয়ায় কুমারখালী, ঝিনাইদহে শৈলকুপা, বাগেরহাট মোংলা বন্দর, মাগুরার মাগুরা, পিরোজপুরের পিরোজপুর, টাঙ্গাইলে ধনবাড়ী, ময়মনসিংহ ফুলবাড়িয়া, নেত্রকোণা কেন্দুয়া, কিশোরগঞ্জ কুলিয়ারচর, সাভার, নরসিংদী মনোহরদী, নারায়ণগঞ্জ তারাবা, শরীয়তপুরে শরীয়তপুর, জগন্নাথপুরে জগন্নাথপুর, কুমিল্লার চান্দিনা, ফেনির দাগনভূঞা, নোয়াখালীর বসুরহাট, খাগড়াছড়ির খাগড়াছড়ি এবং গাজীপুরের শ্রীপুরে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

অপরদিকে, চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ, সিরাজগঞ্জের বেলকুচি, উল্লাপাড়া, সদর ও রায়গঞ্জ, নেত্রকোনায় মোহনগঞ্জ, কুষ্টিয়ার সদর, ভেড়ামারা ও মিরপুর, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ ও সদর, দিনাজপুর সদর ও বিরামপুর, পাবনা ভাঙ্গুড়া, সাথিয়া ও ঈশ্বরদী, রাজশাহী ভবানীগঞ্জ, সুনামগঞ্জ সদর ও ছাতক, হবিগঞ্জে মাধবপুর ও নবীগঞ্জ, ফরিদপুরে বোয়ালমারী, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা, নাটোরের গুরুদাসপুর ও গোপালপুর, বগুড়ার শেরপুর, বান্দরবান জেলার লামা এবং কিশোরগঞ্জ সদর পৌরসভা।

দেশের ৩২৯টি পৌরসভার মধ্যে প্রথম ধাপে ২৮ ডিসেম্বরে০ ২৪টি পৌরসভায় ইভিএমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। দ্বিতীয় পর্যায়ে আজ ৬০টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে। তৃতীয় পর্যায়ে, ৩০ জানুয়ারি ৬৪টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে এবং চতুর্থ পর্যায়ে ৫৬টি পৌরসভায় ১৪ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।



আরো পড়ুন:

চট্টগ্রাম থেকে এমভি বে ওয়ান ক্রুজ জাহাজে করে সরাসরি সেন্টমার্টিন

গত ২৪ ঘন্টায় (১৫ জানু.) করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১৩, শনাক্ত ৭৬২ এবং সুস্থ ৭১৮

রাজনীতির এ বি সি ডি জেনেই রাজনীতিতে আসা উচিত খোকনের

৯৫৬৯ কোটি খরচে ৬ প্রকল্প অনুমোদন

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে রোববার ঢাকায় আসছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে জায়গা পেয়েছে যারা

গাছে বেধে দুই কিশোরকে মারপিটের মামলায় দুই আসামী কারাগারে

বিশ্বনাথ প্রবাসীদের স্বপ্নের ওয়ান পাউন্ড হসপিটালের অফিস উদ্ভোধন ও মতবিনিময় সভা

সৈয়দ আশরাফের কাছে অনেক কিছু শেখার আছে: তথ্যমন্ত্রী

ভারতীয় সেনা প্রধান পাকিস্তান ও চীনকে কড়া হুঁশিয়ারি 

×
সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

মাসের শেষ বা প্রথম সপ্তাহে বালিশ–তোশক, হাঁড়ি–পাতিলের লটবর নিয়ে শহরের পথে ঠেলাগাড়ি বা ট্রাকের চলতে থাকার দৃশ্যটি খুব চেনা। ঢাকা শহরের বাসিন্দাদের বেশির ভাগই থাকেন ভাড়া বাড়িতে। চাকরি বা ব্যক্তিগত কারণে বাসা বদলও ভাড়াটিয়া জীবনযাপনের নিয়মিত অনুষঙ্গ। বাসা বদলানো মানেই ঝামেলা। এ থেকে মুক্তি দিতে বাসা বদলের সুবিধা দিতে ঢাকা শহরে কাজ করছে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান। শুধু ফোনে বা