ঢাকা, বুধবার, ৭ মাঘ ১৪২৭, ২০ জানুয়ারী, ২০২১

Facebook Twitter Instagram Linkedin Youtube

Logo

ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি'র লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতিকে

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: সোমবার, ০৪ জানুয়ারী, ২০২১, ১২:৪৮
ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি'র লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতিকে
ফাইল ফটো

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতি বিতান খানমকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই বিভাগের প্রভাষক টি.এন. সোনিয়া আজাদ এডিট করা এক অডিও দিয়ে এই ষড়যন্ত্র করছেন বলে জানা গেছে।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, গত ০৩ জানুয়ারি বিভাগের প্লানিং কমিটির মিটিংয়ের একটি গোপন রেকর্ডিং বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়। যেখানে বলা হয় বিভাগীয় সভাপতি তারই সহকর্মী টি.এন. সোনিয়া আজাদকে শারীরিক নিগ্রহ এবং হুমকি প্রদান করেছেন। কিন্তু বিভাগীয় প্লানিং কমিটির মিটিংয়ের মত একটি গোপনীয় বিষয়ের কথপোকথন পরিকল্পিতভাবে রেকর্ডিং করে এবং তা পরবর্তীতে এডিট করে প্রকাশ করা হয়েছে বলে অভিযোগ বিভাগীয় সভাপতি। যার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন প্লানিং কমিটির ঐ সভায় উপস্থিত অন্য তিন সদস্য।

বিভাগীয় সভাপতি বিতান খানম বলেন, মিটিংয়ে সকল সদস্যকে আপগ্রেডেশনের সকল তথ্য উপাত্ত পর্যাবেক্ষণ করে স্বাক্ষর করতে বলা হয়। আমাদের সাথে জনাব টি.এন সোনিয়া আজাদও সহমত পোষণ করেন। জনাব ইমা সুলতানা চারুর অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা গণনা ঠিক আছে এই মর্মে স্বাক্ষর করবেন বলে মত পোষণ করেন।

কিন্তু তিনি স্বাক্ষর এর সময় নোট অব ডিসেন্ট সহ স্বাক্ষর করেন।

বিতান খানম বলেন, আমি ও জনাব মোঃ নাসির উদ্দিন জনাব টি.এন, সোনিয়া আজাদের কাছে জানতে চাই কেন সহমত পোষণ করার পর নোট অব ডিসেন্ট সহ স্বাক্ষর করলেন। আপনার যদি আপত্তি থাকত তবে তা মিটিং এ উপস্থাপন করলে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া যেত। এর জবাব না দিয়ে তিনি মিটিং ছেড়ে চলে যেতে চাইলে আমি তাকে মিটিং শেষ করে যেতে বলি।

বিতান খানম বলেন, মিটিং শেষ করে যেতে বল্লে উত্তরে তিনি সবাইকে অবাক করে বলেন, যদি মিটিং শেষ করে না যাই তো আপনি আমাকে মারবেন নাকি? এবং এই কথোপকথন তিনি পূর্ব থেকেই রেকর্ড করছিলেন।

এখানে শারিরিক ভাবে নির্যাতনের কোনো অবস্থা সৃষ্টি হয়নি। তবুও তিনি আমাকে জিজ্ঞেসা করলেন মারার কথা। তারপর আমি আমার প্রজেক্টের রিপোর্ট পিন-আপ করার জন্য ইস্টাপিলার হাতে নেই কিন্তু সে তখন বলে ইস্টাপিলার হাতে নিয়েছেন কি আমাকে মারার জন্য তখন আমি বলি আমি যাই হাতে নিই তাতে-ই আপনার কেন মনে হচ্ছে আমি আপনাকে মারবো? আমি এটা টেবিল ও রাখতে পারি, এটা দিয়ে পিনাপও করতে পারি বা এটা ফেলে দিতেও পারি, এই বলে আমি পাশে ফেলে দেই। তখন সোনিয়া ম্যাডাম চিৎকার করে বলে "বিতান ম্যাডাম আমাকে মারছেন”।

এ কথা বলার কারণ সে ঐ সময় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে রেকর্ড করছিলেন। কিন্তু এ ধরনের কোনো ঘটনার অস্তিত্ব নেই। যা বিভাগের উপস্থিত অন্য সহকর্মীবৃন্দ উপস্থিত থেকে দেখেছেন।

এদিকে ঘটনার বিচার চেয়ে বিভাগীয় সভাপতি বিতান খানম বিশ্ববিদ্যালয় রেজিষ্ট্রার বরাবর একটি আবেদন দিয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে সেই আবেদনের বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা না নিলেও বিতান খানমকে প্রশাসন থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

বিতান খানম বলেন, সোনিয়া ম্যাডাম আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ করার পর আমি তাকে জিজ্ঞেসা করি কেন মিথ্যা অভিযোগ করেছে। সেটা জানতে চাইলে তখন তিনি বলেন “আমি মিথ্যা অভিযোগ করছি তো আপনি আমার কি করবেন? এখন প্রশাসন আমার সাথে আমি চাইলেই অনেক কিছু করতে পারি।“ তখন আমি বলি “আমি আপনার কিছুই করতে পারবোনা আর পারলে তো এতো দিনে করতাম-ই কিন্তু আমি যদি এই পজিশনে না থাকতাম আর আপনি যদি আমার সহকর্মী না হতেন আর কাওকে এতো উপকার করার পর যদি সে আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ করতো তাহলে আমি হয়তো তার কল্লাই কাটতাম।“

প্রসঙ্গত, টি. এন. সোনিয়া আজাদ বর্তমান প্রশাসনের একজন প্রভাবশালী শিক্ষকের ঘনিষ্ঠজন হিসাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিচিত।

বার্তাজগৎ২৪ / এম এ

আরো পড়ুন:

কুড়িগ্রামে স্ত্রী‌কে হত‌্যার দা‌য়ে স্বামীর মৃত‌্যুদণ্ড

জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ধর্ষণের শিকার

হঠাৎ চট্টগ্রাম নগরীর ৫ থানার ওসি পদে রদবদল

৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ

ঘণ কুয়াশায় ফেরি চলাচল বন্ধ, আটকে আছে ৬টি ফেরি



মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় সার্জেন্টকে পিটিয়েছে যুবক

বার্তা জগৎ ডেস্ক
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১, ০৫:২৯
আহত পুলিশ সদস্য
আহত পুলিশ সদস্য

মোটরসাইকেলের কাগজ দেখতে চাওয়ায় পুলিশের এক সার্জেন্টকে পিটিয়ে জখম করেছে এক যুবক। মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে রাজশাহী নগরীর ঐতিহ্য চত্বরে এ মারধরের ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্য বিপুল ভট্টাচার্য বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

পুলিশের দেয়া তথ্যমতে, রাস্তায় চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনের কাগজ পরীক্ষা করছিলেন সার্জেন্ট বিপুল। এসময় এক যুবককে মোটরসাইকেল থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চান তিনি।

কাগজ দেখা নিয়ে যুবকের সাথে কথা কাটাকাটি হয় এ পুলিশ সদস্যের। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ঐ যুবক চড়াও হয়। কাঠের ভাঙা অংশ দিয়ে আঘাত করে বিপুলের শরীরে। এতে ঐ পুলিশ সদস্যের হাত ভেঙে যায় ।

শরীরের বেশ কয়েক জায়গায় জখম হয়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। মোটরসাইকেল জব্দের পাশাপাশি যুবককে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।


আরো পড়ুন:

ঢাকায় যে পরিমাণ টাকা আছে সারাদেশে তা নেই

শিল্প খাতের ৪৮ ব্যবসায়ী হচ্ছেন সিআইপি

চট্টগ্রামে করোনার টিকা মিলবে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি

ঝামেলাহীন বাসা বদল । বার্তাজগৎ২৪

ভূরুঙ্গামারীতে সোনাহাট স্থল বন্দরে আমদানি রফতানিকারক সমিতির ধর্মঘট



চসিক নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামী লীগের দু'গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ

দিদারুল ইসলাম:
প্রকাশিত: রবিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২১, ১২:৫২
চসিক নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামী লীগের দু'গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ
ফাইল ফটো

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিমের নির্বাচনী প্রচারণায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দু'টি গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। নগরীর লালখান বাজার এলাকায় মেয়রপ্রার্থী রেজাউলের প্রচারণায় মাসুম গ্রুপ ও ওই এলাকার কাউন্সিলর মনোনয়ন প্রাপ্ত প্রার্থী বেলাল গ্রুপের কর্মীদের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে,নগরীর টাইগারপাস থেকে শুরু করে লালখান বাজার পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় দফায় দফায় এই সংঘর্ষ চলতে থাকে। এই সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে অন্তত ১০-১৫ জন আহত হয়েছে।আহতদের মধ্যে ৮ জনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফিরে গেছে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ওই এলাকায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিমের গণসংযোগ ছিল
শনিবার (১৬ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে। এ সময় আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর মনোনয়ন বঞ্চিত নেতা দিদারুল আলম মাসুমের অনুসারীরা মিছিল নিয়ে নগরীর টাইগারপাস বটতলা এলাকায় পৌঁছালে এবারের কাউন্সিলর মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলালের অনুসারীদের মধ্যে হঠাৎ এই সংঘর্ষ শুরু হয়।

এই সংঘর্ষের ঘটনায় লালখান বাজার ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম মাসুম ও কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল একে অপরকে পাল্টাপাল্টি দোষারোপ করছেন।



মনোনয়ন প্রাপ্ত কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল গণমাধ্যমকে বলেন, দিদারুল আলম মাসুম কাউন্সিলর পদে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর একের পর এক হামলা করে যাচ্ছে। আজকের এই হামলায় নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়া দলীয় ৮ কর্মী গুরুতর আহত হয়েছে।

অন্যদিকে লালখান বাজার ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম মাসুম গণমাধ্যমকে বলেন,আমরা মিছিল নিয়ে লালখানবাজার থেকে টাইগার পাস পৌঁছাতেই দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত কাউন্সিলর প্রার্থী বেলালের অনুসারীরা অতর্কিত হামলা চালায় আমাদের উপর।হামলায় আমাদের সাথে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের নৌকার সমর্থনে মিছিল করা অনেকেই গুরুতর আহত হয়েছে।যার মধ্যে কয়েকজন নারীও রয়েছে। তিনি আরো বলেন,বেলাল আমাকে দলীয় নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়া থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে চায়।এমনকি সুযোগ পেলে হত্যাও করতে পারে।



আরো পড়ুন:

ভারতের পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ করলো ব্যবসায়ীরা

ওয়াশিংটন ও ভার্জিনিয়ায় কারফিউ জারি

দ্রুততম সময়ে এইচএসসির ফল প্রকাশে সংসদে বিল উত্থাপন

হকারদের দখলে ফুটপাত, পথচারী ভোগান্তি চরমে

৬০ পৌরসভায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে ৬২টি পদে ৮৪০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে

জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ধর্ষণের শিকার

গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে মৃত্যু ২১, শনাক্ত ৫৭৮, সুস্থ ৬৩৩

মেয়াদোত্তীর্ণ পরিচয়পত্রে সংকটে শিক্ষার্থীরা

ফুলকপির মূল্য কম; ট্রাক ভাড়া না দিয়েই পালিয়ে গেলেন দুই ব্যবসায়ী

×
সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতি বিতান খানমকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই বিভাগের প্রভাষক টি.এন. সোনিয়া আজাদ এডিট করা এক অডিও দিয়ে এই ষড়যন্ত্র করছেন বলে জানা গেছে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, গত ০৩ জানুয়ারি বিভাগের প্লানিং কমিটির মিটিংয়ের একটি গোপন রেকর্ডিং বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়।